Skip to content

একুশে শওকাত মোল্লার কারণেই কি আব্বাস সিদ্দিকী হয়ে উঠবে মমতার গলার কাঁটা

একুশে সাওকাত মোল্লার কারণেই কি আব্বাস সিদ্দিকী হয়ে উঠবে মমতার গলার কাঁটা

নিজস্ব প্রতিবেদন : করোনা – লকডাউনে অসহায় মানুষের পাশে যদিও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিজের দ্বারা সমস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানো সম্ভব না , এই সুযোগে প্রথম থেকেই অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন ও এখনও দাঁড়াচ্ছেন বাংলার বিভিন্ন সংগঠন তার মধ্যে একটা সংগঠন হল আব্বাস সিদ্দিকীর সংগঠন, বর্তমান সময়ে বাংলার পিছিয়ে পড়া মুসলিম দলিত, আদিবাসী, হিন্দু অসহায় মানুষের প্রধান মুখ মুখ্যমন্ত্রীর দরবারে ! সকল বিখ্যাত মানুষদের নামে কোনো না কোনো কলেজ, হাসপাতাল, বিশ্ব বিদ্যালয় আরও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান রয়েছে ,কিন্তুু স্বাধীনতা সংগ্রামী আবুবকর সিদ্দিকীর নামে এখনও পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিষ্ঠান তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়নি, আব্বাস সিদ্দিকী বাংলার বর্তমান সরকার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে বহুবার আবেদন রেখেছেন কিন্তুু কিছু তেই কিছু হয়নি ! অবশেষে ১০০ বিঘা জমি কিনে স্বাধীনতা সংগ্রামী আবুবকর সিদ্দিকীর নামে নলেজ সিটি তৈরি করার উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি নিজেই , এইসব নিয়ে ফুরফুরা শরীফ আবুবকর সিদ্দিকীর (দাদা হুজুর) লক্ষ্য লক্ষ্য ভক্তদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন !
তিনার সংগঠনের হাজার হাজার কর্মী রয়েছে বাংলার বিভিন্ন জেলায় জেলায়।
তিনি একুশের বিধানসভায় ৪৪ টা পার্থী দেওয়ার ঘোষণাও করেছেন । যে দল তার নির্বাচিত পার্থী মেনে নেবে তার হয়ে কাজ করার কথা বলেছেন ।
এই কথা শুনে বাংলার BJP পার্টির সভাপতি দিলীপ ঘোষ প্রেস কনফারেন্স এ তিনার সাথে কথা বলে দেখার আহ্বান জানিয়েছেন। CPIM পার্টির নেতা সুজন চক্রবর্তী ও বারবার ঘুরছেন তার দরবারে ।
কিন্তুু তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে থেকে এখনও পর্যন্ত কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।লকডাউনের মধ্যে রমজান মাসে ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর সংগঠন আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের
উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ভাঙ্গড় থানার সদস্য মিন্টু শিকারীকে তৃণমূল নেতা এমএলএ শওকাত মোল্লা অপহরণ করে মারধর চালাচ্ছিল সেই সময় ওনেক মানুষ জমা হয়ে যাওয়াই তড়িঘড়ি নিয়ে গিয়ে থানার হাতে তুলে দেয়,
আব্বাস সিদ্দিকী এক প্রেস কনফারেন্স এ জানান ,
তিনি খবর পেয়ে তড়িঘড়ি এমএলএ শওকাত মোল্লার কাছে ফোনে জানতে চাইলে তিনি জেনেশুনে
আব্বাস সিদ্দিকী কে হুমকী দেন হাত পা ভেঙে ফেলার, দালাল ও বলেন,
ওই ফোন কল রেকডিং সোস্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই সমালোচনার ঝড় উঠতেই শাওকাত মোল্লা এক প্রেস কনফারেন্স এ অভিযোগ করেন তাঁকে নাকি থ্রেড করে কথা বলা হয়েছিল, তার সংগঠনের ছেলেরা নিজের নিজের থানায় এমএলএ শওকাত মোল্লার বিরুদ্ধে মামলা করে,
আব্বাস সিদ্দিকী বলেন আমার সঙ্গে যদি ফোনে এইভাবে আচরণ করা হয় , তাহলে অসহায় মানুষের সঙ্গে কি রকম আচরণ করে,
শাওকাত মোল্লাকে পার্টি থেকে বহিস্কার করার আবেদন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে ভিডিও বার্তায়, যদি বহিস্কার না করা হয় তাহলে একুশের বিধান সভায় দেখে নেওয়ার ও লকডাওন পর বৃহত্তর আন্দোলনে নামার হুশিয়ারি দিয়েছেন।

বড় খবর