Skip to content

Covid-19 খুশি কেড়ে নিয়েছে রোজাদারদের।

সংবাদদাতা চাকুলিয়া, ২৫শে মে: মুসলিম জনগোষ্ঠীর বাৎসরিক দুটো ঈদ (খুশির দিন)।(১) ঈদ উল ফিতর (২) ঈদ উজ্জোহা। দীর্ঘ ১১ মাস অপেক্ষা করার পর ফিরে আসে রমজান মাস। এই মাসে মুসলমান সমাজের লোকেরা রোজা রাখে, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের সাথে গভীর রাতে তারাবীহ্ নামাজ পড়ার পর বিশ্ব সৃষ্টির শ্রষ্ঠা মহান আল্লাহ তায়ালার নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করে।এখানে উল্লেখ্য, ধর্মীয় নিয়ম নিতি যেমন তারাবীহ্ এর নামাজ। এর দোওয়া, নিয়ম নিতি সম্পর্কে আনুমানিক ৮০ শতাংশ মানুষ অবগত নহে। তাই প্রতি রমজান মাসে মসজিদে মসজিদে অভিজ্ঞ আলেমদের রেখে তাদের নেতৃত্বে জামাত সহকারে তারাবীহ্ নামাজ পড়া হত। কিন্তু এইবার এই Covid-19 সব কেড়ে নিয়েছে। যারা নামাজ সম্বন্ধে জানে না তারা বাড়িতে আর কি পড়বে! খবর পাওয়া গেছে অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর বেশি লোক রাজা রেখেছে। কিন্তু মসজিদে নামাজ পড়তে না পারায় সকলের মন খারাপ। তাই ঈদগাহে ঈদের নামাজ পড়তে না পারায় ঈদের দিনে ছোট ছোট শিশু সহ যারা রোজা রাখেনি তাদেরকে রাস্তায় দেখা গেলে ও রোজাদারদের রাস্তার আসে পাশে দেখা মিলেনি।কাহাটা গ্রামের আসিকে রসুল জানালেন, কিসের খুশিতে রাস্তায় যাব। করোনা সব খুশি কেড়ে নিয়েছে। যেখানে তিন মাস যাবৎ মসজিদে যেতে পারলাম না সেখানে আজকে কিসের খুশিতে রাস্তায় যাব? ছোটো বাচ্চারা ভালো মন্দ কিছুই বোঝে না তাই রাস্তায় গেছে। অন্যদিকে পুলিশি তৎপরতা ছিল চোখে পড়ার মত। খবরে জানা গেছে সকাল ৫ টা থেকে এলাকার বিভিন্ন জায়গায় পুলিশি টহল ছিল জোরদার। সকাল ৯ টা পর্যন্ত কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

সাম্প্রতিক খবর